রাজেশ্বরপুর এলাকার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত লোকেরা বন্যার ক্ষতিপূরণের মঞ্জুরীকৃত সরকারী সাহায্য থেকে বঞ্চিত হওয়ার প্রতিবাদে সরব এলাকাবাসী। উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ পাওয়ার জন্য জেলা প্রশাসনের কাছে দাবি।

রাজেশ্বরপুর এলাকার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত লোকেরা বন্যার ক্ষতিপূরণের মঞ্জুরীকৃত সরকারী সাহায্য থেকে বঞ্চিত হওয়ার প্রতিবাদে সরব এলাকাবাসী। উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ পাওয়ার জন্য জেলা প্রশাসনের কাছে দাবি।

রাজেশ্বরপুর এলাকার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত লোকেরা বন্যার ক্ষতিপূরণের মঞ্জুরীকৃত সরকারী সাহায্য থেকে বঞ্চিত হওয়ার প্রতিবাদে সরব এলাকাবাসী। উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ পাওয়ার জন্য জেলা প্রশাসনের কাছে দাবি।

রাজেশ্বরপুর এলাকার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত লোকেরা বন্যার ক্ষতিপূরণের মুঞ্জরীকৃত সরকারী সাহায্য থেকে বঞ্চিত হওয়ায় প্রতিবাদে সরব এলাকাবাসী। উপযুক্ত তদন্তের মাধ্যমে সরকারী সাহায্য থেকে বঞ্চিত প্রকৃত হিতাধিকারীদের বন্যার ক্ষতিপূরণের টাকা দেওয়ার জন্য হাইলাকান্দি জেলা প্রশাসন এবং রাজ্য সরকারের কাছে জোরালো দাবি জানালেন ভুক্তভোগী এলাকাবাসীরা। আজ এলাকাবাসীদের পক্ষ থেকে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এই বিষয়ে প্রতিবাদ সাব্যস্ত করে স্থানীয় বেসরকারি স্কুলের একজন শিক্ষিকা তথা সমাজকর্মী কুমারী সুনীতা সিনহা জানান যে লালা ব্লকের অধীন জোসনাবাদ জিপির অন্তর্গত রাজেশ্বরপুর বেতলাপারের চতুর্থ খণ্ড এবং অষ্টম খণ্ডের বহু পরিবার ২০১৮ সনের অর্থবছরে বন্যায় আক্রান্ত হয়ে প্রচুর পরিমাণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল।

 

কিন্তু সম্প্রতি রাজ্য সরকারের মঞ্জুরীকৃত বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণের টাকা কিছু পরিবার পেলেও অধিকাংশ প্রকৃত ভুক্তভোগী হিতাধিকারী পরিবার এই সাহায্য থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। তাদের নামের পরিবর্তে অনুপযোক্ত বিত্তবান লোকদের নাম সংশ্লিষ্ট এলাকার পাটোয়ারীরা উৎকোচ নিয়ে নথীভুক্ত করায়  প্রকৃত ভুক্তভোগী হিতাধিকারীরা বঞ্চিত হচ্ছেন।  স্থানীয় বেসরকারি স্কুলের শিক্ষিকা তথা সমাজকর্মী কুমারী সুনীতা সিনহা ক্ষোভের সঙ্গে বলেন যে সংশ্লিষ্ট এলাকার পাটোয়ারীদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা টালবাহানা করে এড়িয়ে যাচ্ছেন কোন সদুত্তর দিচ্ছেন না। তিনি জানান যে রাজেশ্বরপুর অষ্টম খণ্ডের তার নিজের পরিবার সহ শিব কুমার সিনহার পরিবার এবং চতুর্থ খণ্ডের কে পূর্ণিমা দেবী সিনহা,কে বিনোদিনী সিনহা,কে ইবেনী সিনহার পরিবার সরকারী সাহায্য থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। কিন্তু ২০১৮ সনের অর্থবছরে তাদের পরিবার ভীষণ ভাবে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। বর্তমানে এই ভুক্তভোগী পরিবারগুলো লকডাউনের সময় অত্যন্ত কষ্টের মধ্যে দিনযাপন করছেন। তাই তিনি এলাকাবাসীদের পক্ষ থেকে এই বিষয়ে প্রতিবাদ সাব্যস্ত করে তদন্তক্রমে বিহিত ব্যবস্থা গ্ৰহন সহ ভুক্তভোগী প্রকৃত হিতাধিকারীদের বন্যার ক্ষতিপূরণের টাকা অতি সত্ত্বর দেওয়ার জন্য হাইলাকান্দি জেলা প্রশাসন সহ রাজ্য সরকারের কাছে জোরালো দাবি জানান। তিনি আরো বলেন যে এই বিষয়ে প্রতিবাদ সাব্যস্ত করে বিভিন্ন দাবি সম্মিলিত একটি স্মারকপত্র দু এক দিনের মধ্যে হাইলাকান্দির জেলাশাসক রোহন কুমার ঝার নিকট দেওয়া হবে।

LEAVE A COMMENT

Comment