মিলন দাস বিধায়ক নির্বাচিত হলে মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল স্থাপন করা সহ হাইলাকান্দি জেলাকে সোনার হাইলাকান্দি বানানোর প্রতিশ্রুতি।

 মিলন দাস বিধায়ক নির্বাচিত হলে মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল স্থাপন করা সহ হাইলাকান্দি জেলাকে সোনার হাইলাকান্দি বানানোর প্রতিশ্রুতি।

মিলন দাস বিধায়ক নির্বাচিত হলে মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল স্থাপন করা সহ হাইলাকান্দি জেলাকে সোনার হাইলাকান্দি বানানোর প্রতিশ্রুতি।

 মধ্য হাইলাকান্দি বিধানসভা সমষ্টির বিজেপির মনোনীত প্রার্থী মিলন দাসের টেম্পুর বাজারে আয়োজিত আজকের অন্তিম দিনের জনসভায় কয়েক হাজার জনতার উপছে পড়া ঢল পরিলক্ষিত হয়েছে। একুশের বিধানসভা নির্বাচনের অন্তিম দিনের জনসভা আজ বেলা ১ টার সময় হাইলাকান্দি জেলার টেম্পুর বাজারে হাইলাকান্দি ব্লক মণ্ডল বিজেপি সাধারণ সম্পাদক পিযুষ কান্তি শর্মার পৌরহিত্যে আয়োজিত একুশের বিধানসভা

নির্বাচনের অন্তিম দিনের নির্বাচনী জনসভায় মুখ্য বক্তা তথা মধ্য হাইলাকান্দি বিধানসভা সমষ্টির বিজেপির মনোনীত প্রার্থী মিলন দাস তার বক্তব্যে এআইইউডিএফ সুপ্রিমো মৌলানা বদরুদ্দিন আজমলের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন। এদিনের নির্বাচনী জনসভায় মুখ্য বক্তা বিজেপি প্রার্থী মিলন দাস বলেন যে এক যুগ ধরে কংগ্ৰেসের বিরোধীতা করে আসা এআইইউডিএফ সুপ্রিমো মৌলানা বদরউন্দিন আজমল আজ নিজের স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য কংগ্ৰেসের সঙ্গে আঁতাত গড়েছেন। যে বদরুদ্দিন আজমলের বিগত দিনের নির্বাচনে কংগ্ৰেসের কাছে পেটের উপর বিষফোঁড়া ছিলো সে নাকি এখন কংগ্ৰেসের প্রিয়পাত্র হয়ে গেছে। মিলন দাস আরো বলেন যে বদরুদ্দিন আজমল শান্তি সম্প্রীতি নষ্ট করার জন্য বিজেপি রাজ্যে পুনরায় ক্ষমতায় আসলে মসজিদের আযান বন্ধ করবে এবং মসজিদ ভাঙ্গবে বলে উস্কানিমূলক মন্তব্য করে হিন্দু-মুসলমানদের মধ্যে যুগ যুগ ধরে চলে আসা ঐক্যের বন্ধনকে বিনষ্ট করার কুপ্রয়াস চালাচ্ছেন। তিনি আরো বলেন যে রাজ্যের বিগত পাঁচ বছরের বিজেপির সরকারের আমলে হিন্দু-মুসলমান বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সবাইকে সমহারে সরকারি সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হয়েছে। কোথাও কোন জায়গায় মসজিদের আযান বন্ধ করে দেওয়া হয়নি এবং ভাঙ্গাও হয়নি তাহলে বিজেপি কিভাবে সাম্প্রদায়িক দল হল প্রশ্ন মিলনের। বিজেপির মনোনীত প্রার্থী মিলন দাস আরো বলেন যে আসল সাম্প্রদায়িক দল হল কংগ্ৰেস এবং এআইইউডিএফ এই দুটো দল। কারণ তারা জাতির ও ধর্মের সুড়সুড়ি দিয়ে ভোট বিভাজন করে নিজেরা ক্ষমতা দখল করতে চাইছেন। তিনি কংগ্ৰেস এবং এআইইউডিএফের অপচেষ্টাকে বানচাল করার জন্য বিজেপি প্রার্থীদের বিপুল ভোটে জয়ী করার জন্য আম জনতার প্রতি আহ্বান জানান। মিলন দাস আরো বলেন যে মহাজোটের মনোনীত প্রার্থীরা বলেছেন যে খেলা হবে কিন্তু তিনি বলছেন যে খেলা শেষ হয়ে গেছে শুধু বিজয়ের ট্রফিটা ভোট গণনার পর বিজেপি প্রার্থীদের কাছে আসাটা আর কয়েক দিনের সময়ের অপেক্ষা মাত্র।

তিনি বলেন যে বিগত ‌পাচবছর ধরে হাইলাকান্দি জেলার তিনটি বিধানসভা সমষ্টির এআইইউডিএফের তিনজন বিধায়ক নিজেদের সমষ্টিতে সিন্ডিকেটরাজ স্থাপন করা ছাড়া আর উন্নয়নমূলক কোন কাজই করেননি। তাদের বিগত পাঁচ বছরের কার্যকালের সময়ে হাইলাকান্দিতে একটি মেডিকেল কলেজ স্থাপনের প্রস্তাব একবারও বিধানসভায় উত্থাপন করেননি। শুধুমাত্র নিজেদের স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য ব্যস্ত থেকেছেন। মিলন দাস বলেন যে মহাজোটের মনোনীত প্রার্থীরা বলেছেন যে খেলা হবে আর তিনি বলছেন যে একুশের নির্বাচনে মধ্য হাইলাকান্দিতে বিজেপির পদ্ম ফুটবে সকল সম্প্রদায়ের মধ্যে সৌভ্রাতৃত্বের মিলন হবে। মিলন দাস আরো বলেন যে তিনি মধ্য হাইলাকান্দির বিজেপির দলীয় টিকিটে বিধায়ক নির্বাচিত হলে হাইলাকান্দিতে একটি মেডিকেল কলেজ স্থাপন সহ শিক্ষা, স্বাস্থ্য,বেকারত্ব, যাতায়াত ব্যবস্থা, বিদ্যুৎ পরিসেবা, পানীয় জল সহ মধ্য হাইলাকান্দির জ্বলন্ত সমষ্যা সমাধান করে হাইলাকান্দি জেলাকে সোনার হাইলাকান্দি বানানোর প্রতিশ্রুতি দেন। এখানে উল্লেখ্য যে এদিনের নির্বাচনী জনসভায় প্রারম্ভে বিজেপি প্রার্থী মিলন দাস সহ জেলা বিজেপি সভাপতি স্বপন ভট্টাচার্য, সাধারণ সম্পাদক স্বপন পাল, মধ্য হাইলাকান্দির বিজেপির প্রভারি জওহর নাথ, জেলা মাইনোরিটি মোর্চার প্রভারি গৌতম গুপ্ত,হাইলাকান্দি বিজেপি মহিলা মোর্চার  সাধারন সম্পাদিকা সম্পা দেব,মাটিজুরি পাইকান জিপির সভাপতি রাজেশ চন্দ্র রায়, হাইলাকান্দি ব্লক মণ্ডল বিজেপি সভাপতি দিপক দাস, সাধারণ সম্পাদক পিযুষ কান্তি শর্মা, মৃণাল চন্দ, ব্লক মণ্ডল যুব মোর্চার সভাপতি বাপন দাস, ব্লক মণ্ডল বিজেপি যুব মোর্চার প্রেস সম্পাদক রূপক দত্ত রাকু, ব্লক মণ্ডল বিজেপি মহিলা মোর্চার সভানেত্রী ললিতা গেরেরি,মাটিজুরি পাইকান জিপির ২ নং ওয়ার্ডের মেম্বার শ্রীমতি রত্না দাস প্রমুখদের ফুলের তোড়া এবং বিজেপির পদ্ম ফুল অঙ্কিত উত্তরীয় পরিয়ে সম্মানিত করা হয়। এই নির্বাচনী জনসভায় বিশেষ বক্তা হিসেবে মাটিজুরি পাইকান জিপির সভাপতি রাজেশ চন্দ্র রায় তার বক্তব্যে বলেন যে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীজীর সবকা সাথ সবকা বিকাশ সবকা বিশ্বাস এই আদর্শকে সামনে রেখে জনগণকে মিশন দাসকে পদ্ম ফুল চিহ্নিত ছবিতে ভোট দিয়ে বিপুল ভোটে জয়ী করার জন্য আম জনতার প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন যে মিলন দাসের মতন একজন উজ্বল ব্যক্তিত্বকে বিজেপির দলীয় টিকিটে বিধায়ক নির্বাচিত করলে জনগণের কল্যাণ হবে।

LEAVE A COMMENT

Comment